কঠোর ব্যবস্থা প্রশ্নফাঁসের গুজব ছড়ালে - Alokitobarta
আজ : মঙ্গলবার, ১৬ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১লা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কঠোর ব্যবস্থা প্রশ্নফাঁসের গুজব ছড়ালে


আলোকিত বার্তা:শিক্ষামন্ত্রী ডা.দীপু মনি বলেছেন,প্রশ্নফাঁসের গুজব ছড়ালে কোনোভাবে তাকে ছাড় দেয়া হবে না।চলমান উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁস রোধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।তাই তিনি গুজবে কান না দিতে পরীক্ষার্থী ও অভিভাবকদের প্রতি আহবান জানিয়েছেন।সোমবার রাজধানীর সিদ্ধেশ্বরী গার্লস কলেজে এইচএসসি পরীক্ষাকেন্দ্র পরিদর্শন শেষে তিনি এ কথা বলেন। পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের কাছে সার্বিক বিষয় তুলে ধরেন শিক্ষামন্ত্রী।মন্ত্রী বলেন,অভিভাবক,পরীক্ষার্থী ও শিক্ষকদের প্রতি আহবান জানাব, কোনো রকমের গুজবে কান দেবেন না। কোনো ধরনের প্রতারণার ফাঁদে পা দেবেন না। কারণ আমরা বিশ্বাস করি প্রশ্নপত্র ইনশাল্লাহ ফাঁস হবে না এবং প্রশ্নপত্র ফাঁসমুক্তভাবে, সুষ্ঠুভাবে পরীক্ষা সম্পন্ন হবে।তিনি বলেন,পরীক্ষার আগে প্রশ্ন ফাঁসের গুজব যাতে কেউ ছাড়াতে না পারে, সেজন্য গোয়েন্দা সংস্থাগুলো অত্যন্ত সক্রিয়। তারা তীক্ষ্ণ নজরদারি করছেন, যেমনটা এসএসসিতে করেছিলেন। কেউ যদি এ ধরনের অপকর্মের সঙ্গে যুক্ত থাকে, গুজব ছড়ানো, প্রতারণা করা, তাহলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

তিনি আরো বলেন, সম্প্রতি শেষ হওয়া এসএসসি পরীক্ষার মতোই এইচএসসি পরীক্ষা সম্পন্ন করা হবে। এ কারণে বিশাল কর্মযজ্ঞ হাতে নেয়া হয়েছে। নানা ধরনের পরিবর্তন আনা হয়েছে।দীপু মনি বলেন,একটি পাবলিক পরীক্ষা আয়োজনের জন্য বিশাল কর্মযজ্ঞের সঙ্গে কয়েক হাজার প্রশ্নপত্র তৈরি করতে হয়। এসব কাজ করতে গিয়ে খুঁটিনাটি কিছু ভুল ধরা পড়ে। এ কারণে এসএসসি পরীক্ষায় অপ্রত্যাশিত কিছু সমস্যা দেখা দেয়। তবে এবার আমরা আরো সতর্ক হয়ে পরীক্ষা সম্পন্ন করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।

তিনি বলেন, দেশে নানা ধরনের কোচিং সেন্টার রয়েছে। তবে আমরা সেগুলো আলাদা করতে পারেনি।এ কারণে আজ ১ এপ্রিল থেকে আগামী ৬ মে পর্যন্ত সব কোচিং সেন্টার বন্ধ রাখার ঘোষণা দেয়া হয়েছে।কোচিং সেন্টারের সাথে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী রয়েছেন,তাদের কারণেই সব কোচিং সেন্টার বন্ধের এই ঘোষণা।সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে পরীক্ষা শেষ করতে তিনি সব অভিভাবক,শিক্ষার্থী ও শিক্ষকসহ গণমাধ্যমের সহযোগিতা চেয়েছেন।সিদ্ধেশ্বরী গার্লস কলেজে এইচএসসি পরীক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শনে শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীন বিভিন্ন দফতর সংস্থা ও ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

Top
%d bloggers like this: