বাঙালি জাতি ভাগ্যবান শেখ হাসিনাকে পেয়ে - Alokitobarta
আজ : সোমবার, ২০শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদঃ
২৯৮ তম পর্ষদ সভা অনুষ্ঠিত বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্পোরেশনের লড়াইয়ের গল্প গোটা বিশ্বের কাছে তুলে ধরাই.......অঙ্গীকার হওয়া উচিত পায়রা বন্দরের সঙ্গে সড়ক ও রেলের কানেকটিভিটি বাড়াতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ মেট্রোরেলের ভাড়ার ওপর ভ্যাট নেওয়ার সিদ্ধান্ত অগ্রহণযোগ্য চাকরির পেছনে ছুটে না বেড়িয়ে চাকরি দেওয়ার মানসিকতা তৈরি করুন বরিশাল বিমানবন্দর এরিয়া ভাঙ্গন রোধে কাজ করছে সরকার বিআরটিসির অগ্রযাত্রায় সাহসিক পদক্ষেপ,সাফল্যের মহাসড়কে অদম্য যাত্রা জুজুৎসুর নিউটনের যৌন নিপীড়নের ভয়ংকর তথ্য লুটপাটের স্বর্গরাজ্যে পরিণত করেছে বিদ্যুৎ খাতকে বেতন বৃদ্ধির দাবি জানিয়েছে তৃতীয় শ্রেণি সরকারি কর্মচারী সমিতি

বাঙালি জাতি ভাগ্যবান শেখ হাসিনাকে পেয়ে


আলোকিত বার্তা:পররাষ্ট্র মন্ত্রী ড. একে আব্দুল মোমেন বলেছেন, আমরা বাঙালি জাতি খুব ভাগ্যবান যে শেখ হাসিনার মত একজন নেতা পেয়েছি।বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৬৮তম স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে এক আলোচনায় সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন। এ আলোচনা সভার আয়োজন করেন বঙ্গবন্ধু একাডেমী।তিনি বলেন,প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তিনটি বিশেষ অবদান হচ্ছে দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা করা, বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা নির্মাণ করা ও আওয়ামী লীগকে সুসংগঠিত করা। শেখ হাসির শাসন যুগকে বাংলাদেশের স্বর্ণযুগ উল্লেখ করে এ পররাষ্ট্র মন্ত্রী বলেন, শেখ হাসিনা বাংলাদের জন্য আশীর্বাদ। তার প্রচেষ্টায় গত কয়েক বছরে বাংলাদেশের দারিদ্র্য অর্ধেক কমে গেছে। সব সেক্টরে আমাদের অভাবনীয় উন্নয়ন হয়েছে। তবে কিছু সেক্টরে আমরা এখনো পিছিয়ে আছি। যে সব সেক্টরে কাঙ্ক্ষিত সেবা এখনো দিতে পারিনি, শেখ হাসিনা থাকলে আমরা সেই সব সেক্টরে কাঙ্ক্ষটি সেবা দিতে পারবো।

অনুষ্ঠানের সভাপতির বক্তব্যে বঙ্গবন্ধু একাডেমীর সহ সভাপতি শেখ ইকবাল খোকন বলেন,শেখ হাসিনা দেশে এসে কলঙ্ক মুছেছে। মুক্তিযুদ্ধের বিরোধীদের ধ্বংসের করেছে। জাতীর পিতার হত্যা পরও আমরা কোন প্রতিবাদ করতে পারিনি। আমাদের সেই কাপুরুষতা দূর করেছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বঙ্গবন্ধু হত্যাকারীদের বিচার করেছে।

সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট শামসুল হক টুকু বলেন,যদি শেখ হাসিনা দেশে ফিরে না আসতো তাহলে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার বিশ্বাসীরা কথা বলতে পারতো না। মুক্তিযুদ্ধের বিরোধীদের বিচার হত না।এ সময় উপস্থিত ছিলেন অ্যাডভোকেট আবদুল বাসেত মজুমদার, অধ্যাপক আবদুল মান্নান চৌধুরী, ড. সিদ্দিকুর রহমান, অ্যাডভোকেট বলরাম পোদ্দার, এমএ করিম, এসএম তফাজ্জল হোসেন, হুমায়ুন কবির মিজি, সিনিয়র সাংবাদিক মানিক লাল ঘোষ, কাজী বসির আহমেদ, খায়রুজ্জামান ফরিদ বক্তব্য দেন।

Top
%d bloggers like this: