বরিশালে বিক্ষোভ হেনরী স্বপনের মুক্তির দাবিতে - Alokitobarta
আজ : সোমবার, ২৭শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১৩ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদঃ

বরিশালে বিক্ষোভ হেনরী স্বপনের মুক্তির দাবিতে


আলোকিত বার্তা:কবি ও সাংবাদিক হেনরী স্বপনকে বুধবারের (১৫ মে) মধ্যে মুক্তির আল্টিমেটামসহ দ্রুত তার বিরুদ্ধে দায়ের করা হয়রানিমূলক মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছেন বরিশালের সুশীল সমাজের নেতারা।মঙ্গলবার (১৪ মে) সন্ধ্যায় হেনরী স্বপনের বিরুদ্ধে ডিজিটাল আইনে মামলা ও তাকে গ্রেফতারের প্রতিবাদে অশ্বিনী কুমার হলের সামনে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে এ আল্টিমেটাম ও দাবি জানানো হয়। এসময় তার মুক্তির আগ পর্যন্ত পুলিশের সব অনুষ্ঠান বয়কটের ঘোষণা দিয়েছেন সাংবাদিক নেতারা।

বরিশাল সাংবাদিক ইউনিয়নের আয়োজনে সমাবেশে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক স্বপন খন্দকার। তিনি বলেন, হেনরী স্বপনের বিরুদ্ধে মামলা ও গ্রেফতারের বিষয়টি নিয়ে নানা প্রশ্ন উঠছে পুলিশ প্রশাসনের বিরুদ্ধে। হেনরী স্বপন এমন কী হয়ে গেছেন যে, তাকে সাদা পোশাকে গিয়ে বাসা থেকে ফিল্মি স্টাইলে তুলে আনতে হবে। ‍আবার মামলার কাগজ কোর্ট কাস্টডিতে না পৌঁছালেও তাকে কোর্টে পাঠানো হয়েছে। এমনকি তাকে গ্রেফতারের সঙ্গে সঙ্গে কারাগারে পাঠানোর জন্য পুলিশ খুবই উদগ্রীব ছিল, যা আমরা পর্যবেক্ষণ করছি।স্বপন খন্দকার বলেন, হেনরী স্বপনকে যখন কয়েকদিন আগে হত্যার হুমকি দেওয়া হয়,তখন আমরা সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করতে থানায় গেলেও পুলিশ তা গ্রহণ করেনি।পুলিশ কার হয়ে এ কাজ করছে? নাকি সরকারকে বেকায়দায় ফেলতে কোনো অপশক্তি কাজ করছে? হেনরী স্বপনের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রমূলক মামলা প্রত্যাহার করতে হবে ও বুধবারের মধ্যে তাকে মুক্তি দিতে হবে।তিনি আরও বলেন,কোনো অপশক্তি বরিশালে বেশিদিন টিকতে পারেনি। আর বরিশালের মানুষ অন্যায়-অত্যাচার সহ্য করবে না।

সমাবেশে একাত্মতা প্রকাশ করে বেসরকারি উন্নয়ন সংগঠন আভাসের নির্বাহী পরিচালক রহিমা সুলতানা কাজল বলেন,হেনরী স্বপন মুক্তচিন্তার মানুষ,অন্যায়ের প্রতিবাদ করা মানুষ।এখন তো মুক্তচিন্তা করা মানুষের অভাব।এরমধ্যে ষড়যন্ত্র করে কবিকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। আমরা বুধবারের মধ্যে তার নিঃশর্ত মুক্তি চাই।সমাবেশে অধ্যাপক নজমুল হোসেন আকাশ বলেন, হেনরী স্বপনকে গ্রেফতারের মধ্য দিয়ে মুক্তচিন্তাধারার মানুষের কণ্ঠরোধ করার পায়তারা চলছে। আমরা তার মুক্তি চাই। দ্রুত তার বিরুদ্ধে করা মামলা প্রত্যাহার করা হোক।সমাবেশে বরিশাল রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি নজরুল বিশ্বাস বলেন,২০১৫ সালে কবি ও সাংবাদিক হেনরী স্বপনসহ মুক্তমনা চিন্তাধারার ছয়জনকে হত্যার হুমকি দেওয়া হয়েছিল।সেসময় থানায় যে লিখিত অভিযোগ দেওয়া হয়েছিল, তার বাদী ছিলেন হেনরী স্বপন।তিনি বলেন,সরকারকে বেকায়দায় ফেলতে প্রশাসনের কিছু সদস্য সারাদেশে কবি, সাহিত্যিক, সাংবাদিকদের নানা ভাবে হয়রানি করছে। আমরা প্রধানমন্ত্রীর নিকট এসব ঘটনা সুষ্ঠু তদন্তের দাবি জানাই।

নজরুল বিশ্বাস বলেন,পুলিশ নানা নাটকীয়তার মধ্য দিয়ে হেনরী স্বপনকে গ্রেফতার করেছে, আমরা সারাদিন পর্যবেক্ষণ করেছি। কয়েকদিন আগে হেনরী স্বপনকে হুমকি দেওয়ার বিষয়টি পুলিশ কমিশনারকে বলেছি। তিনি আশ্বস্ত করেছিলেন, বিষয়টি দেখবেন। কিন্তু আজ আমরা কী দেখছি। আবার হেনরী স্বপনকে গ্রেফতার করে বুধবার সাংবাদিকদের সঙ্গে বসার আমন্ত্রণ জানিয়েছে পুলিশ। আমি বলতে চাই, হেনরী স্বপনের মুক্তির আগে সাংবাদিকরা সেখানে যাবেন কি-না সেটা ভেবে দেখবেন। আর গেলেও কী বলবেন তা ঠিক করুন।সমাবেশে একাত্মতা প্রকাশ করে বরিশাল সাংস্কৃতিক সংগঠন সমন্বয় পরিষদের সভাপতি কাজল ঘোষ বলেন, বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের কথা বলেন হেনরী স্বপন। প্রগতিশীল বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখেন তিনি। কবিকে বুধবারের মধ্যে মুক্তি দিতে হবে। নয়তো বরিশাল বিক্ষোভের নগরীতে পরিণত হবে।বরিশাল সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি পুলক চ্যাটার্জির সভাপতিত্বে সমাবেশে আরও উপস্থিত ছিলেন বরিশাল রিপোর্টার্স ইউনিটির সাবেক সভাপতি আনিসুর রহমান খান স্বপন, সিনিয়র সাংবাদিক নজরুল ইসলাম চুন্নু, সুশান্ত ঘোষ, বিধান সরকার, আলী খান জসিম, বরিশাল সাংস্কৃতিক সংগঠন সমন্বয় পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মিন্টু কর, বরিশাল রিপোর্টার্স ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক বাপ্পী মজুমদার, জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা বরিশাল জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক আরিফুর রহমান, বরিশাল নিউজ এডিটরস কাউন্সিলের সভাপতি সৈয়দ মেহেদী হাসান, সাধারণ সম্পাদক খন্দকার রাকিব প্রমুখ।

সমাবেশে সভাপতির বক্তব্যে পুলক চ্যাটার্জি বলেন, আমরা বুধবারের মধ্যে হেনরী স্বপনের মুক্তি চাই। আর তা না হলে আন্দোলনের শহরে রূপ নেবে বরিশাল।সমাবেশ শেষে অশ্বিনী কুমার হলের সামনে থেকে হেনরী স্বপনের মুক্তির দাবি ও ষড়যন্ত্রমূলক মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়, যা শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে বরিশাল সাংবাদিক ইউনিয়নের কার্যালয়ের সামনে এসে শেষ হয়।এদিকে, বরিশাল রিপোর্টার্স ইউনিটিসহ জেলার বিভিন্ন সংগঠন হেনরী স্বপনকে গ্রেফতার ও তার বিরুদ্ধে ডিজিটাল আইনে মামলার প্রতিবাদ জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছে। পাশাপাশি বুধবার দুপুর ৩টায় নিউজ এডিটরস কাউন্সিল কর্মসূচির ডাক দিয়েছে।

Top
%d bloggers like this: