সম্মানী পাবেন মুক্তিযোদ্ধারা''ডিজিটাল কার্ড-ইলেকট্রনিক পদ্ধতিতে - Alokitobarta
আজ : সোমবার, ২০শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদঃ
লড়াইয়ের গল্প গোটা বিশ্বের কাছে তুলে ধরাই.......অঙ্গীকার হওয়া উচিত পায়রা বন্দরের সঙ্গে সড়ক ও রেলের কানেকটিভিটি বাড়াতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ মেট্রোরেলের ভাড়ার ওপর ভ্যাট নেওয়ার সিদ্ধান্ত অগ্রহণযোগ্য চাকরির পেছনে ছুটে না বেড়িয়ে চাকরি দেওয়ার মানসিকতা তৈরি করুন বরিশাল বিমানবন্দর এরিয়া ভাঙ্গন রোধে কাজ করছে সরকার বিআরটিসির অগ্রযাত্রায় সাহসিক পদক্ষেপ,সাফল্যের মহাসড়কে অদম্য যাত্রা জুজুৎসুর নিউটনের যৌন নিপীড়নের ভয়ংকর তথ্য লুটপাটের স্বর্গরাজ্যে পরিণত করেছে বিদ্যুৎ খাতকে বেতন বৃদ্ধির দাবি জানিয়েছে তৃতীয় শ্রেণি সরকারি কর্মচারী সমিতি সশস্ত্র সন্ত্রাসী ইসরাইল ও ফিলিস্তিনে তুমুল লড়াই চলছে

সম্মানী পাবেন মুক্তিযোদ্ধারা”ডিজিটাল কার্ড-ইলেকট্রনিক পদ্ধতিতে


আলোকিত বার্তা:আগামী অর্থবছর থেকে মুক্তিযোদ্ধাদের ডিজিটাল কার্ড প্রদান ও ইলেকট্রনিক (এ২চ) পদ্ধতিতে সম্মানী ভাতা প্রদানের ব্যবস্থা করা হবে বলে জানিয়েছেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক।বুধবার পরিবহন পুল ভবনের নিকটস্থ সচিবালয় লিংক রোডে সপ্তাহব্যাপী সেবা সপ্তাহের উদ্বোধনকালে বর্ণাঢ্য র‌্যালিপূর্ব সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী।তিনি বলেন,বাংলাদেশকে ডিজিটাল করার লক্ষ্যে বর্তমান সরকার নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানী ভাতা সরাসরি নিজ নিজ ব্যাংক হিসেবে জমা প্রদানের লক্ষ্যে কাজ করছে সরকার।

মন্ত্রী বলেন,মুক্তিযোদ্ধাগণের সেবা সহজে ও ঝামেলামুক্তভাবে প্রদানের লক্ষ্যে মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রণালয় ও এর অধীনস্থ সংস্থাগুলোর কার্যক্রমও পরিপূর্ণ ডিজিটাল পদ্ধতিতে করার লক্ষ্যে কাজ করছে মন্ত্রণালয়।তিনি বলেন,আজ থেকে ১৪ মে পর্যন্ত এ মন্ত্রণালয়ে সেবা সপ্তাহ-২০১৯ পালন করা হবে। মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় ও এর অধীনস্থ সকল দফতর সংস্থার মাধ্যমে বিশেষ ব্যবস্থায় সেবা প্রদান করা হবে। এজন্য মন্ত্রণালয় ও এর অধীনস্থ দপ্তর সংস্থার সকল শাখাকে প্রস্তুত রাখা হবে।

মন্ত্রী বলেন,বিনামূল্যে অসুস্থ মুক্তিযোদ্ধাদের চিকিৎসাসেবা প্রদান করছে সরকার এবং দ্রুত মুক্তিযোদ্ধাদের ডিজিটাল সনদ ও পরিচয়পত্র প্রদানের লক্ষ্যেও কাজ করছে মন্ত্রণালয়। র‌্যালি সচিবালয় লিংকরোড থেকে শুরু হয়ে জিপিও মোড় হয়ে আবার মন্ত্রণালয়ের সামনে এসে সমাপ্ত হয়। র‌্যালিতে মুক্তিযোদ্ধা, সরকারি কর্মচারী, গণমাধ্যমকর্মীগণ অংশগ্রহণ করেন।

Top
%d bloggers like this: