সন্ত্রাসী দল,বিএনপি এখন রাজনৈতিক দল নয় - Alokitobarta
আজ : সোমবার, ২৭শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১৩ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদঃ

সন্ত্রাসী দল,বিএনপি এখন রাজনৈতিক দল নয়


আলোকিত বার্তা:তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহামদু বলেছেন, বিএনপি এখন রাজনৈতিক দল নয়, সন্ত্রাসী দল। এটা আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত। কানাডার আদালত বিএনপিকে সন্ত্রাসী দল হিসেবে রায় দিয়েছে।জাতীয় প্রেসক্লাবে বুধবার অগ্নিকন্যা প্রীতিলতা ওয়াদ্দেদারের ১০৯তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে বাংলাদেশ স্বাধীনতা পরিষদের উদ্যোগে আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।প্রীতিলতা বিল্পবী নারী আন্দোলনের প্রথম নারী সদস্য উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, রাজনীতি একটা ব্রত, কিন্তু রাজনীতি যে একটা ব্রত সেটা অনেক রাজনীতিবিদ ভুলে গেছেন। রাজনীতি একটা ব্রত সমাজ সেবা করার জন্য, রাষ্ট্রের সেবার করার।তিনি বলেন, আজ যে রাজনীতির অবক্ষয় তা শুরু হয় ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের পর। তখন থেকে রাজনীতিবিদদের কেনাবেচা শুরু হয়। রাজনীতিবিদদের কেনাবেচা শুরু করেন মেজর জিয়া। বিভিন্ন দলের ক্ষমতা লোভীদের নিয়ে মেজর জিয়া রাজনৈতিক দল গঠন করেন। আজ যারা বিএনপির বড় বড় নেতা তাদের অতীত ঘাটলে দেখতে পারবেন তারা সবাই অন্য দল করত। তারা ক্ষমতার লোভে অন্য দল থেকে বিএনপি নামক দলে আসে।

আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক হাছান মাহমুদ বলেন, যাদের মধ্যে রাজনৈতিক আর্দশ নেই, যাদের মধ্যে রাজনৈতিক চেতনা নেই, যারা শুধু ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য রাজনীতি করে, যারা শুধু প্রতিষ্ঠিত হতে রাজনীতি করে তারা বেশি দিন থাকতে পারে না।২০ দলীয় জোটের প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন,২০ দলের অনেকেই পালাতে শুরু করেছে। আন্দালিব রহমান পার্থ ঘোষণা দিয়েছে তিনি ২০ দলীয় জোটে আর থাকবেন না। ভবিষতে আমরা আরো দেখতে পাবো ২০ দল থেকে অনেকই বেড়িয়ে যাচ্ছে। বিএনপি থেকেও অনেকে পালাতে শুরু করছে। গত কয়েক মাসে অনেক বিএনপি নেতা প্দত্যাগ করেছেন। আমরা বিএনপির এমন দশা হোক চাই না।
তারেক রহমানের প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, ইংলান্ডে থেকে তারেক রহমান বিশৃঙ্খলা করার চেষ্টা করছেন। এ চেষ্টা চালিয়ে কোনো লাভ হবে না।তিনি আরো বলেন, বিএনপি এখন একটি সন্ত্রাসী দল। আন্তর্জাতিকভবে বিএনপি যে সন্ত্রাসী দলের আখ্যা পেয়েছে সেই আখ্যা থেকে মুক্তি পেতে চাইলে নেতৃত্ব পাল্টাতে হবে।

নেতৃত্ব পাল্টিয়ে বিএনপি জনগণের দল হতে পারবে বলে আশা ব্যক্ত করেন তিনি।অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শামসুল হক টুকু, বাংলাদেশ স্বাধীনতা পরিষদের সভাপতি মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ, স্বাধীনতা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক শাহাদাত হোসেন টয়েল, জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি সাইফুল আলম,ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশের উপাচার্য ডক্টর আব্দুল মান্নান চৌধুরী, ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সহ-সভাপতি নুরুল আমিন রুহুল।অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ স্বাধীনতা পরিষদের উপদেষ্টা ব্যারিস্টার জাকির আহমেদ, সঞ্চালনা করেন বাংলাদেশ স্বাধীনতা পরিষদের সহ-সভাপতি শেখ নওশের আলী।

Top
%d bloggers like this: