ঘূর্ণিঝড় ফণী’র প্রভাবে মির্জাগঞ্জে বেড়িবাঁধ ভেঙে ৫ গ্রাম প্লাবিত - Alokitobarta
আজ : সোমবার, ১৭ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৩রা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঘূর্ণিঝড় ফণী’র প্রভাবে মির্জাগঞ্জে বেড়িবাঁধ ভেঙে ৫ গ্রাম প্লাবিত


মির্জাগঞ্জ(পটুয়াখালী)প্রতিনিধি\ঘূর্ণিঝড় ‘ফণী’র প্রভাবে পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জের মেন্দিয়াবাদ গ্রামেরপায়রা নদীর বাধঁ ভেঙ্গে ৫ গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। গতকাল শুক্রবার সকাল দশটারদিকে পায়রা নদীর স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে ৪-৫ ফুট পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় পানিরস্রোতের চাপে পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) ৪১/৭ নং পোল্ডারেরমেন্দিয়াবাদ গ্রামের বাধঁ ভেঙ্গে রবি ফসলী মাঠ ও বসত ঘরবাড়ি প্লাবিতহয়েছে। অনেকেই ঘরবাড়ি ছেড়ে গুরুত্বপূর্ণ মালামাল নিয়ে আশ্রয় নিতে শুরুকরেছেন পার্শ্ববর্তী নিরাপদ স্থানে। গতকাল দুপুর দেড়টার দিকে ঝড়ে উপজেলার২০টি ঘর ক্ষতিগ্রস্থসহ সহাস্ধসঢ়;্রাধিক গাছের উপরে পড়েছে। উপজেলারমেন্দিয়াবাদ গ্রামের মোঃ জাহাঙ্গীর আলাম সানু বলেন, সিডরে এ এলাকারঅনেক জান-মালের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। ফণী’র কথা শুনেই আতঙ্কে আছি। শুক্রবারসকালে মেন্দিয়াবাদ গ্রামের বেড়িবাঁধ ভেঙে লোকলয়ে পানি ঢুকেছে। আমরাঝুঁকিপূর্ণ এলাকায় অবস্থান করছি। বেড়িবাঁধ ভেঙে আমার বাড়িতে পানিঢুকে পড়েছে। রাতের জোয়ারে কি হবে জানি না।

গত দুই বছর পর্যন্তমেন্দিয়াবাদ গ্রামের বাধঁ নির্মান করা হয় না এ এলাকার মোনসে আলীসিকদারের কারনে। পায়রার ভাঙ্গনের কারনে নতুন বেড়িবাধঁ মোনসে আলীসিকদারের জমির উপর দিয়ে নেয়ার কথা কিন্তু তিনি জমি না দিলে পানি উন্নয়নবোর্ড এখানে বেধিবাধঁ নির্মান করছে না। এতে প্রায়ই পায়রা নদীর পানিঅস্বাভাবিক বৃদ্ধি পেলে পানিতে ৫টি গ্রাম প্লাবিত হয়। এলাকার লোকজননিজেদের উদ্যোগে মাটি দিয়ে জোয়ারের পানি কোন মতে বাধঁ দিলেও ফনি’রপ্রভাবে তা ভেঙ্গে গ্রামগুলো প্লাবিত হয়। এদিকে বাধঁ ভেঙ্গে পানি প্রবেশ করারখবরশুনে সেখানে ছুটে যান উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান খান মোঃ আবু বকরসিদ্দিকী,উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবদুল্লাহ আল জাকী ও উপজেলা প্রকল্পবাস্তবায়ন কর্মকর্তা এস.এম দেলোয়ার হোসেনসহ স্থানীয় সংবাদকর্মী।উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবদুল্লাহ আল জাকী বলেন, ঘূর্নিঝড় ফনি’রপ্রভাবে মেন্দিয়াবাদ গ্রামের পায়রা নদীর বাধঁ ভেঙ্গে পানি লোকালয়ে প্রবেশকরায় সেখানে ছুটে যাই এবং ওই এলাকাসহ অন্য এলাকার প্রায় ৩ হাজারমানুষসহ তাদের গৃহপালিত পশুকেও নিরাপদে আশ্রয়ে নেয়া হয়েছে।

অণ্যইউনিয়নের তেমন কোন সমস্যা নেই। পটুয়াখালী পানি উন্নয়ন বোর্ডেরনির্বাহী প্রকৌশলী মোহাম্মদ হাসানুজ্জামান জানান, মির্জাগঞ্জ উপজেলারদেউলী ইউনিয়নের মেন্দিয়াবাদ গ্রামের পায়রা নদীল ৪৭/১ নং পোল্ডারের আগেথেকেই বেড়িবাঁধ ক্ষতিগ্রস্থ ছিল। নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় ওই পয়েন্ট থেকেগ্রামে পানি ঢুকে পড়েছে। মানুষ বেশি ক্ষতিগ্রস্থ না হয় তার ব্যবস্থা নেয়ারচেষ্টা করছি।

Top
%d bloggers like this: