জামায়াতে ইসলামীর নতুনভাবে সংগঠিত হওয়ার ব্যাপারে সবাইকে সতর্ক থাকার আহ্বান - Alokitobarta
আজ : সোমবার, ১৭ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৩রা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

জামায়াতে ইসলামীর নতুনভাবে সংগঠিত হওয়ার ব্যাপারে সবাইকে সতর্ক থাকার আহ্বান


আলোকিত বার্তা:জামায়াতে ইসলামীর নতুনভাবে সংগঠিত হওয়ার ব্যাপারে সবাইকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও কেন্দ্রীয় ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম। তিনি বলেন, আমরা গতকাল লক্ষ্য করেছি জামায়াত-শিবিরের কিছু ছেলে নতুন রূপে সংগঠিত হওয়ার চেষ্টা করছে। ছাত্রশিবিরের ইতিহাস অত্যন্ত খারাপ। তাদের অতীতের ভূমিকায় মানুষের মনে সন্দেহ আছে, ঘৃণা আছে। তাই সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে ও গোয়েন্দা সংস্থাগুলোকে অনুরোধ করব তারা যেন জামায়াত-শিবিরের এই নতুনভাবে সংগঠিত হওয়ার পেছনের উদ্দেশ্য ভালোভাবে জানতে পারেন এবং সতর্ক থাকেন।আজ রোববার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ১৪ দলের সভা শেষে তিনি সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।

এর আগে শনিবার (২৭ এপ্রিল) জন আকাঙ্ক্ষার বাংলাদেশ- স্লোগানে নতুন রাজনৈতিক মঞ্চের ঘোষণা দিয়েছেন জামায়াতে ইসলামীর সংস্কারপন্থীরা। এদিন দুপুরে রাজধানীর বিজয়নগরের হোটেল একাত্তরে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তারা এ মঞ্চের ঘোষণা দেন।
স্বাধীন সত্তার বিকাশে অধিকার ও কল্যাণরাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার রাজনীতি’ শিরোনামে ছয় পৃষ্ঠার ঘোষণাপত্র পাঠ করেন মঞ্চের সমন্বয়ক জামায়াতে ইসলামীর নেতা মজিবুর রহমান মঞ্জু।ঘোষণাপত্রে বলা হয়, জাতীয় মুক্তি ও জন আকাঙ্ক্ষার নতুন বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ে উজ্জীবিত একদল আশাবাদী মানুষের উদ্যোগ এটি। এর মাধ্যমে নিজেদের ভাবনা ও ভবিষ্যৎ রাজনৈতিক পরিকল্পনার কথা তুলে ধরা হবে।সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে নাসিম বলেন, ‘বিএনপির নির্বাচিত নেতারা সংসদে যোগদানের পথে। একজন যোগদান করে এ যাত্রা শুরু করেছে। যখন শুরু হয়েছে আমি মনে করি সবাই যোগদান করবে, তবে মির্জা ফখরুল সম্পর্কে বলতে পারব না।’

বিশ্বব্যাপী জঙ্গি হামলার বিষয়ে ১৪ দলের মুখপাত্র বলেন, ‘সম্প্রতি নিউজিল্যান্ড, শ্রীলংকাসহ বিশ্বব্যাপী জঙ্গিবাদী নৃশংস ঘটনায় আমরা ব্যথিত। আওয়ামী লীগ ও ১৪ দল মানবতায় বিশ্বাসী। আমরা চাই পৃথিবীর কোথাও মানবতা লাঞ্ছিত হবে না, ধর্ষিত হবে না, ভূলুণ্ঠিত হবে না। তিনি আগামী মঙ্গলবার (৩০ এপ্রিল) শান্তির পক্ষে বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে সমাবেশ, তারই ধারাবাহিকতায় ১৪ দল জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় পর্যায়ে সমাবেশ করবে বলে ঘোষণা দেন।আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য গোলাম মাওলা নকশবন্দী, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ) সাধারণ সম্পাদক শিরিন আখতার, সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়া, বাংলাদেশ জাসদের সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হক প্রধান, আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপসহ জোটের অন্য দলগুলোর নেতারা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

Top
%d bloggers like this: